No icon

পদ্মায় গাড়ি চলবে জুনে

যোদ্ধা ডেস্কঃ করোনা মহামারিতে দীর্ঘদিন লকডাউন থাকায় দেশের যে ক্ষতি হয়েছে সেটি পুষিয়ে নিতে উন্নয়নমূলক কাজের গতি বাড়াতে সংশ্লিষ্টদের নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। গতকাল সোমবার মন্ত্রিসভা বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এ নির্দেশনা দিয়েছেন। মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম বলেছেন, সরকার আশা করছে আগামী বছরের জুনের মধ্যে যান চলাচলের জন্য পদ্মা সেতু খুলে দেয়া হবে।

বৈঠক শেষে সচিবালয়ে মন্ত্রিপরিষদ সচিব সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান। প্রধানমন্ত্রীর সভাপতিত্বে মন্ত্রিসভা বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে গণভবন থেকে প্রধানমন্ত্রী এবং সচিবালয়ে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে মন্ত্রী ও প্রতিমন্ত্রীরা বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন।

মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, কোভিড সংক্রমণের দুই বছর হয়ে গেছে। সেজন্য এরইমধ্যে একটা প্রটোকলও ডেভেলপ হয়ে গেছে। সুতরাং সবাইকে আরেকটু গতি বাড়িয়ে কাজ করে উন্নয়নের গতি আগের মতো নিয়ে যাওয়ার নির্দেশনা দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, শুধু উন্নয়ন কার্যক্রম নয় সব ধরনের কাজকর্মের গতি বাড়াতে হবে। যাতে আমাদের প্রবৃদ্ধিসহ সবকিছু যেন কোভিডের আগের অবস্থায় ফিরে যায়। এজেন্ডার বাইরে প্রধানমন্ত্রীর কোনো নির্দেশনা ছিল কি নাÑ এমন প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, যেহেতু কোভিড সংক্রমণের দুই বছর হয়ে গেছে। সেজন্য আমাদের একটা প্রটোকলও ডেভেলপ হয়েছে। সুতরাং সবাইকে আরেকটু এনহ্যান্স কাজ করে আমাদের ব্যাকলক যদি থাকে সেটা ডেভেলপমেন্ট ফেইজটা আগের মতো নিয়ে যেতে হবে। শুধু ডেভেলপমেন্ট না সব ধরনের কাজকর্ম যাতে আমাদের গ্রোথ রেটসহ সবকিছু যেন কোভিডের আগে যে রেটে ছিল সেখান থেকে আবার প্রোগ্রেস করতে পারি। কোন কোন খাতে গুরুত্ব দিতে বলা হয়েছে। সবাইকে, যে ভালো করেছে তাকেও বলা হচ্ছে।

করোনাভাইরাসের সংক্রমণের সময় দেয়া বিধি-নিষেধ এখনও কিছু কিছু রয়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, বঙ্গভবনে এবার ১৬ ডিসেম্বরের প্রোগ্রাম হচ্ছে না। প্যারেড গ্রাউন্ডে প্রোগ্রাম হবে, কারণ সেখানে ফ্রি মিক্সিং হবে না। ফ্রি মিক্সিং টাইপের ম্যাসিং লেভেলের এগুলোকে ডিসকারেজ করা হচ্ছে। আমরা ইতোমধ্যে ৩২টি জেলার সঙ্গে মিটিং করেছি। তাদের বলেছি, কমফোর্ট ও রিল্যাক্স হওয়ার কোনো স্কোপ নেই। সবাইকে এটেনটিভ থাকতে হবে এবং সোশ্যাল ডিসিটেন্সিংয়ের বিষয়ে কেয়ারফুল থাকতে হবে। কারণ আল্লাহ না করুক আবার যদি এ গ্রোভেট করে কারণ গতবার আমরা ডিসেম্বরের পর জানুয়ারি থেকে দেখলাম। এ বিষয়ে সবাইকে সতর্ক করা আছে। ইতোমধ্যে ৯ কোটি লোককে ভ্যাকসিন দেয়া হয়েছে। মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, আগামী ফেব্রুয়ারির মধ্যে প্রত্যেক মাসে দুই থেকে আড়াই কোটি ভ্যাকসিন দেয়া হবে।

মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, আগামী ২০২২ সালের জুনে পদ্মা সেতু যান চলাচলের জন্য খুলে দেয়া হবে। মন্ত্রিসভা বৈঠকে মন্ত্রণালয় ও বিভাগগুলোর ২০২০-২১ অর্থবছরের কার্যাবলি সম্পর্কিত বার্ষিক প্রতিবেদন উপস্থাপনকালে এ তথ্য জানানো হয়। তিনি বলেন, পদ্মা সেতুর কাজ ৮৭ শতাংশ অগ্রগতি হয়েছে। আশা করছি আগামী ২০২২ সালের জুন বা তার আশপাশের সময়ে ইনশাআল্লাহ যান চলাচলের জন্য সেতু খুলে দেয়া হবে।

Comment