No icon

দেশে ২৪ ঘণ্টায় করোনায় মৃত্যুর নতুন রেকর্ড ২৬৪, শনাক্ত ১২,৭৪৪

যোদ্ধা  ডেস্কঃ দেশে করোনাভাইরাস সংক্রমণে গত ২৪ ঘণ্টায় (বুধবার সকাল ৮টা থেকে আজ বৃহস্পতিবার সকাল ৮টা পর্যন্ত) ২৬৪ জনের মৃত্যু হয়েছে। মহামারি শুরু হওয়ার পর এক দিনে করোনায় এটাই সবচেয়ে বেশি মৃত্যু। এর আগে দেশে একদিনে করোনায় সবচেয়ে বেশি মৃত্যুর খবর এসেছিল গত ২৭ জুলাই, ২৫৮ জনের।

গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন রোগী শনাক্ত এবং রোগী শনাক্তের হার আগের দিনের চেয়ে কমেছে। এ সময় নতুন রোগী শনাক্ত হয়েছে ১২ হাজার ৭৪৪ জন। আজ বৃহস্পতিবার বিকালে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য জানানো হয়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় মোট ৪৬ হাজার ৯৯৫ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়। পরীক্ষার বিপরীতে রোগী শনাক্তের হার দাঁড়িয়েছে ২৭ দশমিক ১২ শতাংশ। আগের দিন ২৪১ জনের মৃত্যু হয়েছিল। নতুন রোগী শনাক্ত হয়েছিল ১৩ হাজার ৮১৭ জন। পরীক্ষার বিপরীতে রোগী শনাক্তের হার ছিল ২৭ দশমিক ৯১ শতাংশ।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, সব মিলিয়ে দেশে এখন পর্যন্ত করোনা সংক্রমিত শনাক্ত রোগীর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১৩ লাখ ২২ হাজার ৬৫৪। মোট মৃত্যু হয়েছে ২১ হাজার ৯০২ জনের। আর করোনায় আক্রান্ত হওয়ার পর এখন পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন ১১ লাখ ৫৬ হাজার ৯৪৩ জন। সর্বশেষ ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন ১৫ হাজার ৭৮৬ জন।

গত ২৪ ঘণ্টায় সবচেয়ে বেশি ৮৭ জনের মৃত্যু হয়েছে ঢাকা বিভাগে। এ ছাড়া চট্টগ্রাম বিভাগে মারা গেছেন ৫৬ জন, খুলনা বিভাগে ৩৫ জন এবং রাজশাহী বিভাগে ১৯ জনের মৃত্যু হয়েছে। এতদিন এই চার বিভাগেই করোনায় বেশি মৃত্যু হচ্ছিল। তবে গত ২৪ ঘণ্টায় বাকি বিভাগগুলোতে মৃত্যু বেড়েছে। তার ওপর ভর করেই দেশে সর্বোচ্চ মৃত্যুর রেকর্ড হয়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় সিলেট বিভাগে মারা গেছেন ২৩ জন। এরপর রংপুরে ১৮, বরিশাল ১৬ এবং ময়মনসিংহ বিভাগে ১০ জনের মৃত্যু হয়েছে।

বাংলাদেশে প্রথম করোনা সংক্রমণ শনাক্ত হয় গত বছরের ৮ মার্চ। এরপর বিভিন্ন সময়ে সংক্রমণ কমবেশি হলেও দুই মাসের বেশি সময় ধরে দেশে করোনা পরিস্থিতি উদ্বেগজনক অবস্থায় পৌঁছেছে। করোনার ডেলটা ধরনের দাপটে দৈনিক সংক্রমণ ও মৃত্যু কয়েক গুণ বেড়েছে। গত জুলাই মাসে দেশে করোনায় মৃত্যু হয়েছে ৬ হাজার ১৮২ জনের। প্রায় দেড় বছর ধরে চলা এই মহামারিতে এর আগে কোনো মাসে এত মৃত্যু দেখেনি বাংলাদেশ। এর আগে বেশি মৃত্যু হয়েছিল গত এপ্রিলে ২ হাজার ৪০৪ জনের।

জানা যায়, সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে আনতে গত মাসের প্রথম দুই সপ্তাহ দেশে সর্বাত্মক বিধিনিষেধ পালন করা হয়। এ সময় সব ধরনের অফিসের পাশাপাশি গণপরিবহন চলাচলও বন্ধ রাখা হয়। কিন্তু ২১ জুলাই ঈদুল আজহা উপলক্ষে এই বিধিনিষেধ আট দিনের জন্য শিথিল করা হয়। ঈদের পর ২৩ জুলাই থেকে আবার দুই সপ্তাহের সর্বাত্মক বিধিনিষেধ চলছে। ৫ আগস্ট এই বিধিনিষেধ শেষ হওয়ার কথা ছিল। তবে ৫ দিন বাড়িয়ে তা ১০ আগস্ট পর্যন্ত চালিয়ে নেওয়ার সিদ্ধান্ত নেয় সরকার।

Comment